Temple Association Cancelled Ambubachi Mela at Kamakhya Temple in Guwahati of Assam

Ambubachi Mela: অম্বুবাচী মেলা বন্ধ – আসতে মানা সাধুদের

ভ্রমণ

অম্বুবাচী মেলা (Ambubachi Mela) হিন্দু ধর্মের একটা বাৎসরিক উৎসব। অম্বুবাচীর দিন থেকে পরর্বতী তিন দিন পর্যন্ত কামাখ্য দেবীর দুয়ার বন্ধ থাকে, এই সময়ে …

একের পর এক ধর্মীয় উৎসবের ইতি ঘোষিত হচ্ছে। জমায়েতকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে অনেক আগেই। লকডাউনের দ্বিতীয় পর্ব চলছে। কালীঘাট, তারকেশ্বর, চাকলা, অমরনাথের পর আসামের কামাখ্যা মন্দিরের উৎসব বন্ধ করা হলো। অম্বুবাচী মেলা (Ambubachi Mela) হিন্দু ধর্মের একটা বাৎসরিক উৎসব। অম্বুবাচীর দিন থেকে পরর্বতী তিন দিন পর্যন্ত কামাখ্য দেবীর দুয়ার বন্ধ থাকে, এই সময়ে কোনো ধরনের শুভ মাঙ্গলিক কাজ করা যায় না। বছরের পর বছর ধরে অসমে এই ‘অম্বুবাচী মেলা’-র আয়োজন হয়ে আসছে।

Temple Association Cancelled Ambubachi Mela at Kamakhya Temple in Guwahati of Assam
Temple Association Cancelled Ambubachi Mela at Kamakhya Temple in Guwahati of Assam

মারণ ভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কায় থেমে গেল কামাখ্যা মন্দিরের চিরকালীন পরম্পরা। প্রত্যেক জুন মাসে এই উৎসব হওয়ার কথা থাকলেও এখন থেকেই তা বাতিল ঘোষণা করা হয়। ভারতের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পুন্যার্থী, ভক্তরা এই মেলায় আসে। জুন মাসের ২২ থেকে ২৬ তারিখ পর্যন্ত এই উৎসব হওয়ার কথা ছিল, কিন্তু এখন থেকেই তা বাতিল ঘোষণা করল ‘মা কামাখ্যা দেবালয়’ কর্তৃপক্ষ। আয়োজক এই সংস্থার পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে এই বছরে কামাখ্যায় মহোৎসব হবে না।

এবছরের অমরনাথ যাত্রা বাতিল করা হলো – আরও জানতে ক্লিক করুন …

এর সাথে সকল পূর্ণার্থী, তীর্থ যাত্রী, সাধু-সন্ন্যাসীরা যাতে সেই উৎসবে অংশগ্রহণ করতে কামাখ্যায় না আসেন। কর্তৃপক্ষ আরও জানিয়েছে, বিখ্যাত এই মেলা অনুষ্ঠিত না হলেও, ওই ৪ দিন মন্দিরে যে রীতি মানা হয়ে আসছে, তা অবিরত থাকবে। এই মেলার সময়, ভারতের বিভিন্ন প্রান্তের থেকে আসা লক্ষ লক্ষ ভক্তেরা কামাখ্যা মন্দিরের চতুর্দিকে বসে কীর্ত্তন করেন। মন্দিরের বাহিরে প্রদীপ ও ধূপকাঠী জ্বালিয়ে দেবীকে প্রনাম করেন। অম্বুবাচী নিবৃত্তির দিন পান্ডারা ভক্তদের রক্তবস্ত্র উপহার দেন। কিন্তু সবাইকে এবার আগামী বছরের জন্য অপেক্ষা করতে হবে।

১৪ই ও ১৫ই মে কেদারনাথ-বদ্রীনাথ মন্দির খুলবে – আরও জানতে ক্লিক করুন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *