Almost 400 whales died in Tasmania island o Australia

তাসমানিয়ার সমুদ্রসৈকতে তিমির মৃত্যু মিছিল

আন্তর্জাতিক

সমুদ্রসৈকতে আটকে পড়ে অগণিত পাইলট তিমি মারা (Whales died in Tasmania) গেছে। জানা যাচ্ছে, বিশ্বে এর আগে একই স্থানে এত সংখ্যক …

নিজস্ব সংবাদদাতা: গোটা বিশ্ব এক খারাপ দৃশ্যের সাক্ষী থাকলো। সমুদ্রসৈকতে তিমির মৃত্যু মিছিল। শতাধিক তিমির মৃত্যুর ঘটনা প্রতিবারই ঘটে অস্ট্রেলিয়ায়। অস্ট্রেলিয়ার এক দ্বীপ রাজ্য তাসমানিয়া। এর সমুদ্রসৈকতে আটকে পড়ে অগণিত পাইলট তিমি মারা (Whales died in Tasmania) গেছে। জানা যাচ্ছে, বিশ্বে এর আগে একই স্থানে এত সংখ্যক তিমির মৃত্যুর ঘটনা ঘটেনি। ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়া রাজ্যে ১৯৯৬ সালে ৩২০টি তিমির সৈকতে আটকে পড়া রেকর্ড করা হয়েছিল। এখানে প্রায় ৪৬০টি পাইলট তিমি আটকে গিয়েছে। এর মধ্যে ৩৮০টি তিমি মৃত বলে ঘোষণা করা হয়েছে।

Almost 400 whales died in Tasmania island o Australia
Almost 400 whales died in Tasmania island o Australia

তবে বাকি ৫০টিকে বাঁচাতে প্রাণপণ চেষ্টা করছেন উদ্ধারকর্মীরা। ৩০টির মতো তিমি গভীর জলে পাঠ্য সম্ভব হয়েছে। আরও ৩০টি তিমি ফেরত পাঠাতে যাবে। অনেক তিমিকে ভেজা কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখাসহ নানান উপায়ে ঠান্ডা রাখার চেষ্টা করা হচ্ছে। সার্বিক পরিস্থিতি বুঝে তিমিকে সাগরে ভাসানো হবে। জীববিদ ক্রিস কার্লিয়ন বলেন, সমুদ্র বালুচরে আটকে থাকা পাইলট তিমিদেরকে এভাবে তিন-চার দিন বাঁচিয়ে রাখা যায়। মৃত তিমিগুলো উপকূলে মাটিচাপা দেওয়া হবে বা উন্মুক্ত সাগরে ফেলে দেওয়া হবে।

[ আরও পড়ুন ] যুক্তরাষ্ট্রের চার অঙ্গরাজ্যে আগাম ভোট – ভ্যাকসিন ???

গত ১০ বছরে এতগুলি তিমিকে একসঙ্গে আটকে পড়তে দেখিনি গোটা পৃথিবী। প্রখ্যাত জীববিজ্ঞানী, অভিজ্ঞ স্বেচ্ছাসেবক, স্থানীয় মৎস্যজীবীদের ৬০ জনের দল এই উদ্ধারকাজ চালাচ্ছেন। প্রায় দশ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে এই গুরুত্বপূর্ণ কাজ চলছে। সামুদ্রিক ডলফিন প্রজাতির এই পাইলট তিমিরা সাধারণত লম্বায় সাত মিটার হয়। যদিও দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডে এই ঘটনা স্বাভাবিক বলেই জানিয়েছে স্থানীয় পরিবেশ বিভাগ। আর অস্ট্রেলিয়ায় তিমি আটকে পড়ার ঘটনাগুলোর ৮০ শতাংশের বেশি এই তাসমানিয়ায় ঘটে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *