Donald Trump Impeachment Happened for the Third Times

Trump Impeachment: আমেরিকার ইতিহাসে তৃতীয় বার

আন্তর্জাতিক

মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদে ডোনাল্ড ট্রাম্পের ( Trump Impeachment ) বিরুদ্ধে ওঠা দু’টি অভিযোগের ভিত্তিতে ইমপিচমেন্ট প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছে।

পৃথিবীর দাপুটে শাসক বেশ সমস্যায়। গোটা পৃথিবীর কাছে তিনি ক্ষমতায়নের অদ্ভুত চালিকা শক্তি। মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদে ডোনাল্ড ট্রাম্পের ( Trump Impeachment ) বিরুদ্ধে ওঠা দু’টি অভিযোগের ভিত্তিতে ইমপিচমেন্ট প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছে। আমেরিকার ইতিহাসে ডোনাল্ড ট্রাম্প হলেন তৃতীয় প্রেসিডেন্ট যাঁকে ইমপিচ করা হল। এর আগে ১৮৬৮ এবং ১৯৯৮-তে ইমপিচ করা হয়েছিল মার্কিন প্রেসিডেন্ট অ্যান্ড্রু জনসন এবং বিল ক্লিনটনকে। ‘হাউজ অফ রিপ্রেজেন্টেটিভস’-এ ভোটাভুটিতে ট্রাম্পকে ইমপিচ করার পক্ষে সায় দেন অধিকাংশ সদস্য।

ইম্পিচমেন্ট প্রস্তাব নিয়ে বুধবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি পরিষদে ভোট হয়েছিল। ওই কক্ষে ডেমক্র্যাট সদস্যরাই সংখ্যাগরিষ্ঠ। পার্টি লাইন অনুযায়ী ভোট দিয়েছেন সকলে। গতকাল বুধবার হাউস অব রিপ্রেসেন্টেটিভ-এ ডেমোক্র্র্যাট ও রিপাবলিকানদের মধ্যে দীর্ঘ ১১ ঘণ্টা উত্তপ্ত বিতর্ক হয়। ট্রাম্পের বিরুদ্ধে দু’টি অভিযোগের ক্ষেত্রেই ইম্পিচমেন্টের সমর্থনে অধিক সংখ্যক ভোট পড়েছে। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ওঠা প্রথম অভিযোগে ‘হাউস অফ রিপ্রেজেন্টেটিভস’-এ ইমপিচমেন্টের পক্ষে ভোট পড়েছে ২৩০টি৷ বিপক্ষে ভোট পড়েছে ১৯৭টি৷ দ্বিতীয় অভিযোগে ইমপিচমেন্টের পক্ষে ২২৯ ভোট ও বিপক্ষে ১৯৮।

বেশ চাপে পড়েছেন ট্রাম্প। তার বিরুদ্ধে ওঠা দু’টি অভিযোগের একটি হল, তিনি তাঁর ক্ষমতা ব্যবহার করে তাঁর রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বী ডেমক্র্যাট জো বিডেনের বিরুদ্ধে তদন্তের জন্য ইউক্রেনের ওপর চাপ সৃষ্টি করার চেষ্টা করেছিলেন। ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ওঠা দ্বিতীয় অভিযোগটি হল, ইম্পিচমেন্টের তদন্তে অসহযোগীতা এবং কংগ্রেসের কাজে বাধা দানের চেষ্টা করেছেন তিনি। এখন গোটা বিষয়টাই নির্ভর করছে সেনেটের উপর। সেখানেও যদি ভোট ট্রাম্পের বিপক্ষে যায়, তা হলে পুনরায় নির্বাচনে দাঁড়ানোর আগেই সরে যেতে হতে পারে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে।কিন্তু সেনেটে রিপাবলিকানদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকায় এই মুহূর্তে ট্রাম্পের জন্য পরিস্থিতি খুব মারাত্মক নয় বলেই মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *