FATF Threats to Blacklist Pakistan

পাকিস্তানকে “কালো” তালিকাভুক্ত করার হুঁশিয়ারি দিলো এফএটিএফ।

আন্তর্জাতিক

সন্ত্রাস বন্ধ করতে পাকিস্তান যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তা ঠিক মতো মানা হয়েছে কিনা সেটা চলতি বছরের জুন এবং অক্টোবর মাসে খতিয়ে দেখা হবে।

ক্রমশ কোনঠাসা হচ্ছে পাকিস্তান।পুলওয়ামার জঙ্গি হানার পর অর্থ সাহায্য করার ব্যাপারে পাকিস্তানকে কালো তালিকায় রাখল ফিনানসিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স(‌এফএটিএফ)‌। সন্ত্রাসবাদ কোনওভাবেই আর্থিক সাহায্য না পায় তা নিশ্চিত করতেই কাজ করে এই সংস্থা।নির্দিষ্ট সময়সীমা বেঁধে দিয়ে এফএটিএফ-এরকড়া বার্তা, চার মাসের মধ্যে রাষ্ট্রপুঞ্জের নির্ধারিত জঙ্গিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। অন্যথায় ‘কালো তালিকাভুক্ত’ হবে ইমরানের ইসলামাবাদ।

এই সংস্থার সদস্য সংখ্যা ৩৮। প্যারিসে বৈঠক করে এই সিদ্ধান্ত নেয় এফএটিএফ। সন্ত্রাস বন্ধ করতে পাকিস্তান যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তা ঠিক মতো মানা হয়েছে কিনা সেটা চলতি বছরের জুন এবং অক্টোবর মাসে খতিয়ে দেখা হবে। কালো তালিকাভুক্ত হলে, আর্থিক দিক থেকে বিরাট ধাক্কার মুখে পড়বে ইমরান খানের সরকার। আর্থিক সঙ্কটে দীর্ণ পাকিস্তানকে আর্থিক সাহায্য বন্ধ করে দিতে পারে পৃথিবীর বহু দেশ ও আন্তর্জাতিক সংগঠন।

গত বছরের জুনেই পাকিস্তানকে ‘ধূসর তালিকাভুক্ত’ করেছিল এফএটিএফ। সেই সময়ই নির্দিষ্ট করে ২৭টি পদক্ষেপ নির্ধারিত করে দিয়েছিল এই সংস্থা। জঙ্গিগোষ্ঠীগুলোর অর্থের জোগানসহ আর্থিক তছরুপ বা জালিয়াতি, দুর্নীতির মতো বিষয়ে নজরদারি ও তদারকি করে এফএটিএফ। ৩৭টি দেশের সরকারি অনুমোদনপ্রাপ্ত এই সংস্থার নির্দেশিকা, হুঁশিয়ারি জাতিসংঘের সদস্য দেশগুলোর নিকট গুরুত্বপূর্ণ।

পাকিস্তান যদিও দাবি করে লস্কর-ই-তৈবা, জামাত-উদ-দাওয়া, জইশ-ই-মহম্মদ, ফালাহ-ই-ইনসানিয়াত-এর মতো জঙ্গি সংগঠনের প্রায় ৭০০টি সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। কিন্তু ভারত-সহ এফএটিএফ-র অন্য সদস্য দেশগুলির বক্তব্য, পাকিস্তানের এই দাবির কোনও ভিত্তি নেই, স্বপক্ষে প্রমাণও নেই।পাকিস্তান সন্ত্রাসে মদত দেওয়া বন্ধ করেনি বলে সেই সময় এফএটিএফ এর হাতে প্রমান তুলে দিয়ে দিয়েছিল ভারত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *