France Freezes All Property Of JeM Chief Masood Azhar

মাসুদ আজহারের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করবে ফ্রান্স ।

আন্তর্জাতিক

France Freezes All Property of JeM Chief Masood Azhar

ফ্রান্সের অভ্যন্তরীণ, অর্থ ও বিদেশ মন্ত্রকের পক্ষ থেকে একটি যৌথ বিবৃতি দিয়েছে ফরাসি সরকার। তাতে স্পষ্ট, ফ্রান্সে মাসুদ আজহারের স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

জইশ-ই-মহম্মদ প্রধান মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি তকমা দিতে, রাষ্ট্রপুঞ্জে চেষ্টার ত্রূটি রাখেনি নি ভারত| বিশ্বের সব দেশই, ভারতের পাশে থাকার কথা ভেবেছে| কিন্তু একমাত্র চিনের ভেটোয় মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী ঘোষণা করা যায় নি। তাই বিকল্প রাস্তায় জইশ-ই-মহম্মদ প্রধানকে কোণঠাসা করার চেষ্টা শুরু করল ইউরোপের দেশগুলি।

সন্ত্রাসের শিরোমনি সেই মাসুদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার সিদ্ধান্ত নিল ফ্রান্স। ফরাসি সরকার এক বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, ইউরোপের অন্যান্য দেশগুলিকেও একই আর্জি জানানো হবে। সন্ত্রাস দমনে সব সময়ই ভারতের পাশেই থাকবে ফ্রান্স।

জানা গেছে, ফ্রান্সের অভ্যন্তরীণ, অর্থ ও বিদেশ মন্ত্রকের পক্ষ থেকে একটি যৌথ বিবৃতি দিয়েছে ফরাসি সরকার। তাতে স্পষ্ট, ফ্রান্সে মাসুদ আজহারের স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। সঠিক ও গ্রহণযোগ্য নির্দিষ্ট আইনে মাসুদ আজহারের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হবে।

আসলে এই জইশকে ২০০১ সাল থেকেই জঙ্গি গোষ্ঠী হিসেবে ঘোষণার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে রাষ্ট্রপুঞ্জ। আর সেই কারণেই ইউরোপের মিত্র দেশগুলিকে এই মাসুদ আজহারের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার জন্য আর্জি জানাবে ফ্রান্স। ইউরোপে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপে যুক্ত জঙ্গি সংগঠনের তালিকায় জইশকে আনার দাবি জানানো হবে ।

সেই ২০১৬ সালে পাঠানকোটে, বায়ুসেনার ঘাঁটিতে ভয়াবহ জঙ্গি হানার পর থেকেই মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী ঘোষণার চেষ্টা চালিয়েছে রাষ্ট্রপুঞ্জ। কিন্তু প্রতিবার আটকে গিয়েছে পাকিস্তানের ‘বন্ধু’ চীনের ভেটো দেওয়ায়। অথচ পুলওয়ামা হামলার পর ফের চাপ বাড়ে পাকিস্তানের উপর। তারপরেই রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য তিন দেশ আমেরিকা, ফ্রান্স ও ব্রিটেন নতুন করে প্রস্তাব পেশ করে।

এই নিয়ে চতুর্থ বার মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী ঘোষণার প্রক্রিয়ায় বিপক্ষে থাকলো চীন। এবার অন্য পথে পাকিস্তান ও আজহারের উপর চাপ বাড়াতে শুরু করল ফ্রান্স। সবাই একসাথে না এগোলে, এই বিপদের সন্ত্রাসকে নির্মূল করা যাবে না| ফ্রান্স একটা নতুন দিশা দেওয়ার চেষ্টা করলো|

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *