Iran claims it has underground missile cities

ইরানে মাটির নিচে বিশাল ‘ক্ষেপণাস্ত্র শহর’

আন্তর্জাতিক

বিশাল এই ক্ষেপণাস্ত্র ভান্ডার কোথায় লুকিয়ে মাটির নিচে (Missile Cities)। এই দেশ একাধিক ভূগর্ভস্থ ক্ষেপণাস্ত্র শহর তৈরি করেছে। এমনকি ক্ষেপণাস্ত্র সমৃদ্ধ …

নিজস্ব সংবাদদাতা: ভাইরাসকে প্রতিপক্ষ ভাবছে অনেক দেশ। বরং সামরিক শক্তিতে আরও সমৃদ্ধ হতে চাইছে এই সব দেশ। এই পথের অন্যতম পথিক ইরানে। মধ্যপ্রাচ্যের সবচেয়ে শক্তিশালী ক্ষেপণাস্ত্র সম্পদের মালিক এই দেশ। যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরায়েলের গোয়েন্দারা কিছুদিন আগে কথা জানিয়েছে। বিশাল এই ক্ষেপণাস্ত্র ভান্ডার কোথায় লুকিয়ে মাটির নিচে (Missile Cities)। এই দেশ একাধিক ভূগর্ভস্থ ক্ষেপণাস্ত্র শহর তৈরি করেছে।

Iran claims it has underground missile cities
Iran claims it has underground missile cities

এমনকি ক্ষেপণাস্ত্র সমৃদ্ধ এ শহর পারস্য উপসাগরের তীর থেকে অনেকটা গভীরে ছড়িয়ে আছে। শহরগুলোতে একাধিক বাঙ্কার ও ভাসমান প্ল্যাটফর্ম আছে। ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র ও রকেটের ভান্ডার দেখাতে একটা বিস্ময়ের ছবি প্রকাশ করা হয়। এছাড়া ইরানের কয়েকটি চ্যানেল, সেদেশের মাটির নিচে ‘ক্ষেপণাস্ত্র শহরের’ ভিডিও প্রকাশ করেছে। এইসব ভিডিওতে দেখা যায়, মাটির নিচে টানেলের মধ্যে সাজিয়ে রাখা হয়েছে সারি সারি ক্ষেপণাস্ত্র।

[ আরও পড়ুন ] পাকিস্তানের হাতে চীনের চারটি ড্রোন! ভারতে মার্কিন অস্ত্র !

এগুলো বিভিন্ন মডেলের ও বিভিন্ন ক্ষমতার আধুনিক হাতিয়ার। মাটির নিচে ওই ক্ষেপণাস্ত্র শহরের ব্যবস্থাপনার জন্যও ব্যস্ত আছে অগণিত সামরিকবাহিনীর সদস্যরা। উপসাগরীয় তীরে প্রায় দুই হাজার ২০০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে এ মিসাইল শহর অবস্থিত। তবে মাটির কত ফুট গভীরে এটি আছে, তা জানা যায় নি। ইরানি শাখা রেডিও ফার্দা জানায়, মাটির নিচে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র নগরীতে হাজার হাজার ক্ষেপণাস্ত্র ও রকেট মজুদ করা হয়েছে।

[ আরও পড়ুন ] ট্রাম্পের বিরুদ্ধে জারি ইরানের গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

যেকোনো হামলার জন্য এগুলো সবসময় প্রস্তুত রাখা হয়। তবে এই আধুনিক ক্ষেপণাস্ত্র শহরের কোথায় আছে , তা জানা সম্ভব হয়নি। ইরানের নৌবাহিনীর ২৩ হাজার সদস্য ও ৪২৮টির মতো জাহাজ দক্ষিণাঞ্চলীয় সীমান্তসহ নানা জায়গায় গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে। ইরানের এ নৌবাহিনী প্রধান জানান , ‘খুব দ্রুত এই মিসাইল শহরে এমন অনেক মিসাইল যোগ হবে যা বিপক্ষ শিবিরের ধারণার অতীত। এগুলো অত্যন্ত আধুনিক ও বিপক্ষ শিবিরের অনেক গভীরে আঘাত করতে সক্ষম হবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *