JeM Chief Masood Azhar Never Felt Sick in Last 17 Years

দীর্ঘ ১৭ বছরে কখনও অসুস্থ হননি মাসুদ ।

আন্তর্জাতিক

JeM Chief Masood Azhar Never Felt Sick in Last 17 Years – মাসুদ জঙ্গিদের স্পষ্ট জানিয়েছে, গত ১৭ বছরে তিনি কখনও অসুস্থ হয়ে পড়েননি।তাঁকে কখনও হাসপাতালেও ভর্তি হতে হয়নি।

পাকিস্তানে খুব ভালো ভাবেই রয়েছেন জইশ-ই-মহম্মদ প্রধান মাসুদ আজহার। সার্বিক সুস্থ্য আছেন তিনি|গোপনে ভারতে হামলার বেশ কয়েকটি বৈঠকও সেরে ফেলেছেন এর মধ্যে।এমনই খবর গোপন সূত্রে পেয়েছেন দেশের গোয়েন্দারা।আসলে পাকিস্তানের বালাকোটে ভারতীয় বায়ুসেনার এয়ার স্ট্রাইকের পর থেকে বেশ ফের সক্রিয় এই মাসুদ আজহার।

জানা যাচ্ছে, জইশ-ই-মহম্মদের জঙ্গিদের সঙ্গে ইতিমধ্যেই একটি বৈঠক করেছেন তিনি। ভারতের পুলওয়ামার মতো আরও একটা হামলা করার নির্দেশও দিয়েছেন। ওই বৈঠকেই মাসুদ জঙ্গিদের স্পষ্ট জানিয়েছে, গত ১৭ বছরে তিনি কখনও অসুস্থ হয়ে পড়েননি।তাঁকে কখনও হাসপাতালেও ভর্তি হতে হয়নি। তাঁর স্বাস্থ্যের অবস্থা নিয়ে সবসময় ভুল খবর প্রচার করা হচ্ছে।

এই মাসুদ আজাহারের জন্ম পাকিস্তানের পঞ্জাব প্রদেশে ১৯৬৮ সালে। বাবা আল্লা বক্স সাবির ছিলেন সরকারি স্কুলের হেডমাস্টার। বাড়ির প্রত্যেকে যুক্ত ছিল ডেয়ারি ও পোলট্রি ব্যবসার সাথে। সেই ২০০১ সালে ভারতের সংসদ চত্বরে বিস্ফোরণে নাম জড়ায় এই মাসুদের।ছোটবেলার স্কুল ছেড়ে জামিয়া উলুম-ই-ইসলামি স্কুলে ভর্তি হয় মাসুদ।

আর তখন থেকেই অমুসলিম ব্যক্তিদের প্রতি মারাত্মক বিদ্বেষ তৈরি হয় তার মধ্যে।পড়াশোনায় ভাল হাফিজ পাশ করে বিশ্ববিদ্যালয়ও। তবে ১৯৯৪ সালে হরকত উল মুজাহিদিন নামে কাশ্মীরি জঙ্গিগোষ্ঠীর সঙ্গে যুক্ত থাকার অপরাধে গ্রেফতার করা হয় তাকে।ততদিনে সোমালিয়া ও ব্রিটেনেও একাধিকবার গিয়েছে সে জঙ্গি কার্যকলাপকে সক্রিয় করতে।

এরপর ১৯৯৯ সালের ২৪শে ডিসেম্বর ইন্ডিয়ান এয়ারলাইন্সের বিমান আইসি ৮১৪ কাঠমান্ডু থেকে দিল্লি আসছিল। সেই বিমানটিকে ভারতের আকাশ থেকে ছিনতাই করে আফগানিস্তানের কন্দহরে নিয়ে যাওয়া হয়। ১৫৪ জন যাত্রীর প্রাণের বিনিময়ে মাসুদ আজহার, মুস্তাক আহমেদ ‌জ়ারগর ও আহমেদ উমর সঈদ শেখের মতো জঙ্গিদের মুক্তি দিতে বাধ্য হয় দেশের অটলবিহারী সরকার।মুক্তি পাওয়ার পরেই ২০০০ সালে জইশ-ই-মহম্মদ জঙ্গিগোষ্ঠী গড়ে তোলে এই মাসুদ। কাশ্মীরে জঙ্গি কার্যকলাপ সক্রিয় করা থেকে সংসদে হামলা, সবকিছুতেই এই মাসুদ।

আসলে বালাকোটে ভারতের প্রত্যাঘাতের পর একটি বিদেশি চ্যানেলকে সাক্ষাত্কার দিয়েছিলেন পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি। সেখানে তিনি বলেছিলেন যে, মাসুদ আজহার গভীর অসুস্থ। তিনি কিডনির রোগে গুরুতর ভাবে ভুগছেন। আর তাই মাসুদকে নিয়ে ভারতের সব দাবি মিথ্যা।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি দক্ষিণ কাশ্মীরের পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলা ও বালাকোটে প্রত্যাঘাতের পাকিস্তানের একের পর এক দাবি মিথ্যা বলে দেখা গিয়েছে।ফলে এবারও মাসুদের অসুস্থতা নিয়ে পাকিস্তানের আরও একটি মিথ্যা প্রমাণিত হলো।আর পরিষ্কার হলবেশ উদ্বেগজনক কিছু তথ্য।লোকসভা নির্বাচনের মধ্যেই না আবার হামলায় আক্রান্ত হয় দেশবাসী|

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *