Mysterious fireball noticed in Germany for 7 seconds

জার্মানির আকাশে ‘আগুনের গোলা’ – ৭ সেকেন্ডের বিস্ময় !

আন্তর্জাতিক

কয়েক সেকেন্ডের জন্য জার্মানির আকাশে উজ্জ্বল গোলাকার আগুন (Fireball noticed in Germany) দেখা গেছে। এই আয়ু ছিল মাত্র …

নিজস্ব সংবাদদাতা: মহাকাশ জুড়ে আছে নানা অজানা, অদেখা বিস্ময়ের ঘটনা। এর সবটা বিজ্ঞান দিয়ে বোঝা যায় না। এমনই এক ঘটনা ঘটে গেলো জার্মানিতে। কয়েক সেকেন্ডের জন্য জার্মানির আকাশে উজ্জ্বল গোলাকার আগুন (Fireball noticed in Germany) দেখা গেছে। এই আয়ু ছিল মাত্র সাত সেকেন্ড। তবে জার্মানির আকাশে জ্বলতে থাকা এই আগুনের গোলাকে কোনো গ্রহাণুর অংশ বলে মনে করছেন একাধিক বিজ্ঞানীরা। জার্মানির নানা জায়গা থেকে কমবেশি ৯০ জন প্রত্যক্ষদর্শী ইউরোপের ফাইয়ারবল নেটওয়ার্ককে এই আগুনের গোলা দেখেছেন। প্রত্যেকে তাদের মতো করে এই ছবির ব্যাখ্যা দিয়েছেন।

Mysterious fireball noticed in Germany for 7 seconds
Mysterious fireball noticed in Germany for 7 seconds

যদিও এই ঘটনা নিয়ে কৌতূহল অনেক দেশের। বার্লিনের টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটি ও জার্মান এরোস্পেস সেন্টারের যৌথ উদ্যোগে পরিচালিত ফায়ারবল নেটওয়ার্ককে সিগেন শহরের এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, এই আগুনের গোলাটি আকাশে পাঁচ থেকে সাত সেকেন্ড স্থায়ী ছিল। হঠাৎ সেই আলো একসময় সবুজ রঙ ধারণ করে। এরপর তা ছোট দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে যায়। এক প্রত্যক্ষদর্শী অস্ট্রিয়ার গাহব্যার্গ পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রকে ‘সবুজ লেজওয়ালা এক উজ্জ্বল বস্তুকে পশ্চিম থেকে পূর্বের দিকে ছুটে চলে যাওয়ায় কথা জানিয়েছেন।

[ আরও পড়ুন ] পৃথিবীর সমান্তরাল ব্রহ্মাণ্ডের খোঁজ মিলেছে

নানা মহলে এটি নিয়ে নানা জল্পনা শুরু হয়েছে। একটি গ্রহাণুর অংশবিশেষ সম্ভবত এই পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে প্রবেশ করেছিল। মধ্য জার্মানির কাসেল শহরের উপর এর অবস্থান ছিল বলে এটিকে দেখা গেছে। এর সাথে টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক ইয়ুরগেন ওব্যার্স্ট বলেন, কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই জার্মানির বিভিন্ন জায়গা থেকে আকাশে আগুনের গোলা দেখার খবর আসে।

[ আরও পড়ুন ] ২০৬৮ সালে এক গ্রহাণু মুছে দিতে পারে পৃথিবীর অস্তিত্ব

এক গাড়িচালকের ড্যাশবোর্ডের ক্যামেরায় ধারণ হওয়া আগুনের গোলার ছুটে যাওয়ার দৃশ্য প্রকাশ করেছেন। আগুনের গোলার চেয়ে তার লেজ ৩-৪ গুণ বড় ছিল। উল্কাপাত আর আগুনের গোলার মধ্যে কিছুটা পার্থক্য আছে। পাঁচ সেকেন্ডের কম সময় ধরে জ্বলতে থাকা বস্তুকে উল্কা বলা হয়। কিন্তু এর বেশি সময় ধরে আকাশে জ্বলতে থাকা বস্তুকে ফায়ারবল বা আগুনের গোলা বলা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *