Pak Aircraft in Indian Sky

বদলা নিতে ভারতের আকাশে পাক যুদ্ধবিমান – Pak Aircraft in Indian Sky

আন্তর্জাতিক

নিয়ন্ত্রণ রেখার পাশেই চারটি প্রায় জনবসতি শূন্য স্থানে বোমা বর্ষণ করে যায় পাকিস্তানের তিনটি যুদ্ধবিমান।

আশংকাই সত্যি হলো| শান্তির বদলে পাকিস্তান শুরু করে দিলো যুদ্ধের সংঘাত| স্বদেশের জঙ্গিবাহিনীর চাপে হার মানতে হলো ইমরানকে| অগণিত সাধারণ মানুষের মৃত্যুর চেয়ে বড়ো হয়ে উঠলো যুদ্ধের বাস্তবিক প্রতিশোধের অহমিকা| ভারতীয় বায়ুসেনার প্রত্যাঘাতের ২৪ ঘণ্টা পর আজ ভারতীয় আকাশসীমা লঙ্ঘন করল পাকিস্তানি যুদ্ধবিমান।

আজ, বুধবার সকালে জম্মু-কাশ্মীরের রাজৌরি জেলার নওশেরা সেক্টরের আকাশে ৪টি পাকিস্তানি যুদ্ধবিমানের দেখা গেছে। কিন্তু সেগুলি ভারতীয় সেনার র‌্যাডারে ধরা পড়তেই সক্রিয় হয় ভারতীয় বায়ুসেনা। সেনাদের তাড়া খেয়ে শেষ পর্যন্ত ফিরে যায় পাক যুদ্ধবিমানগুলি।

তবে পাকিস্তান ফিরে যাওয়ার আগে তাদের একটি বোমা ধ্বংস করে দিয়েছে ভারতীয় সেনা। এএনআই সূত্রে জানা গেছে, বুধবার সকালে রাজৌরি জেলার নওশেরা সেক্টরের লাম উপত্যকায় একটি সেনা শিবিরের কাছে আচমকা বোমা ফেলে পাক যুদ্ধবিমান। এটি ছিল মার্কিন প্রযুক্তিতে তৈরি পাক বায়ুসেনার ৪টি এফ-১৬ বিমান। র‌্যাডারে তা ধরা পড়তেই ভারতীয় বায়ুসেনা তাড়া করে ও তার মধ্যে একটিকে গুলি করে নামানো হয়। যদিও সেই পাক পাইলট, বিমান থেকে ঝাঁপিয়ে নিয়ন্ত্রণরেখা অতিক্রম করে পালিয়ে যেতে সক্ষম হন।

আসলে গতকালের ভারতের এয়ার স্ট্রাইকের বদলা নিতে আকাশসীমা লঙ্ঘন করেছে পাকিস্তানের যুদ্ধবিমান। পাকিস্তানের অন্তত তিনটি বোমারু বিমান ভারতের সীমান্ত এলাকার চার জায়গায় বোমা বর্ষণ করেছে। যদিও রাজৌরির ডিডি মীর আইজাজ পাক বোমারু বিমানে এ দেশে ঢোকার কথা স্বীকার করেছেন।

নিয়ন্ত্রণ রেখার পাশেই চারটি প্রায় জনবসতি শূন্য স্থানে বোমা বর্ষণ করে যায় পাকিস্তানের তিনটি যুদ্ধবিমান। এগুলো হল – রাজৌরি জেলার নাদিয়ান, লাম ঝাঙ্গার, কেরি এবং পুঞ্চের হামিরপুর এলাকার ভীমবের গাল্লি। জানা গেছে, পাকিস্তানি বোমা বর্ষণে ৫ জন সাধারণ নাগরিক আহত হয়েছেন। তবে ভারতীয় বিমান বাহিনীর দাপটে পাক যুদ্ধবিমানগুলি বেশিক্ষণ সীমান্তের কাছে থাকেনি।পরিস্থিতি ভুঝতে পেরে, পাকিস্তান প্রশাসন দ্রুত সরিয়ে নেয় তাদের বিমান বাহিনী|

সেনা সূত্রে জানা গেছে,ভারতে আছে মোট ১২ লক্ষ পদাতিক বাহিনী, ৩৫৬৫ যুদ্ধ ট্যাঙ্ক, ৩১০০ কামানবাহী গাড়ি, ৩৩৬টি অস্ত্রসজ্জিত গাড়ি, ৯৭১৯ কামান। আর পাকিস্তানের হাতে রয়েছে ৫ লক্ষ ৬০ হাজার পদাতিক বাহিনী, ২৪৯৬টি ট্যাঙ্ক, ১৬০৫টি অস্ত্রসজ্জিত গাড়ি, ৪৪৭২ কামান, এর মধ্যে রয়েছে ৩৭৫টি স্বয়ংক্রিয় হাউয়িৎজার কামান। প্রায় দেড় লক্ষ সেনা, ৮১৪টি যুদ্ধবিমান রয়েছে ভারতের বায়ুসেনার কাছে।

পাকিস্তানের কাছে রয়েছে ৪২৫টি সামরিক বিমান।ভারতীয় নৌবাহিনীর ক্ষেত্রে বিমানবাহী যুদ্ধজাহাজ ছাড়াও রয়েছে ১৬টি ডুবোজাহাজ, ১৪ ডেস্ট্রয়ার, ১৩টি ফ্রিগেট, ১০৬টি নজরদারি ও উপকূল এলাকায় যুদ্ধ করতে সক্ষম সশস্ত্র জাহাজ, ৭৫টি যুদ্ধ জাহাজ, রয়েছে ৬৭ হাজার সেনাও।পাকিস্তান এ ক্ষেত্রে অনেকটাই পিছিয়ে রয়েছে। ৯টি ফ্রিগেট, ৮টি সাবমেরিন, ১৭টি নজরদারি ও উপকূল এলাকায় যুদ্ধ করতে সক্ষম এমন জাহাজ, ৮টি যুদ্ধজাহাজ রয়েছে পাক নৌবাহিনীর কাছে| কিন্তু এই ভান্ডারের তথ্য জানার প্রয়োজন আমাদের নেই| কারণ পরমাণু শক্তিতে দুই দেশ খুবই মজবুত| আর সেখানেই ভয়|

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *