Pakistan has brought 30,000 madrasas under government control

পাকিস্তান ৩০,০০০ মাদ্রাসাকে সরকারি নিয়ন্ত্রণে আনছে ।

আন্তর্জাতিক

Pakistan Has Brought 30000 Madrasas Under Government Control – আরবি শব্দ দারসুন থেকে উদ্ভূত যার অর্থ ‘পাঠ’। মাদ্রাসা মূলত মুসলমানদের অধ্যয়ন-গবেষণা প্রতিষ্ঠান।

অনেকটা আন্তর্জাতিক চাপে পড়ে এবার পাকিস্তান. তাদের দেশের মাদ্রাসাগুলির বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিতে চলেছে। পৃথিবীর প্রায় সব দেশ থেকেই আসছে কূটনৈতিক চাপ| তার ফলে সন্ত্রাসবাদ দমনের জন্য দেশের ৩০,০০০ মাদ্রাসাকে সরকারি নিয়ন্ত্রণে আনছে ইমরান খান।এমনটাই জানিয়েছেন পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআইয়ের জনসংযোগকারী আধিকারিক জেনারেল আসিফ গফুর।

আসলে পাকিস্তানের বিপুল সংখ্যক মাদ্রাসাকে সমাজের মূল স্রোতে আনতেই তাদের এই প্রচেষ্টা। তবে এর পেছনে আছে আন্তর্জাতিক চাপ – এটাই মনে করছে সেই দেশের রাজনৈতিক মহল।এবার থেকে অন্যান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মতো এই সব মাদ্রাসাতেও পড়ানো হবে সমকালীন বিষয়। আর তৈরি করা হবে নতুন পাঠ্যক্রম যেখানে কোনও রকম বিদ্বেষমূলক ভাষার প্রয়োগ থাকবে না| সেখানে সকল পড়ুয়াদের সব ধর্ম ও জাতির প্রতি সহনশীল হতে শেখানো হবে।

মাদ্রাসা, আরবি শব্দ দারসুন থেকে উদ্ভূত যার অর্থ ‘পাঠ’। মাদ্রাসা মূলত মুসলমানদের অধ্যয়ন-গবেষণা প্রতিষ্ঠান। সাধারণ অর্থে মাদ্রাসা হচ্ছে আরবি ভাষা ও ইসলামি বিষয়ে অধ্যয়নের প্রতিষ্ঠান। মাদ্রাসার প্রাথমিক স্তর মক্তব, নূরানি বা ফোরকানিয়া মাদ্রাসা নামে অভিহিত। ফোরকানিয়া শব্দের মূল ফুরকান যার অর্থ বিশিষ্ট।

মিথ্যা থেকে সত্যকে সুস্পষ্টভাবে পৃথক করে বলে পবিত্র কুরআন-এর আরেক নাম আল ফুরকান। প্রাথমিক স্তরের যেসব মাদ্রাসায় কুরআন পাঠ ও আবৃত্তি শেখানো হয় সেগুলিকে বলা হয় দর্‌সে কুরআন। সাধারণত স্থানীয় কোন মসজিদেই আশেপাশের পরিবারের ছোটদের প্রাথমিক পর্যায়ের ধর্মীয় শিক্ষা দেওয়া হয়। মসজিদের ইমাম ও মোয়াজ্জিনরাই সাধারণত এর শিক্ষক বা উস্তাদ হন।

প্রয়োজনীয়তা ভেবে জেনারেল আসিফ গফুর বলেন, ইসালামি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থাকবে কিন্তু সেখানে কোনও হিংসা শেখানো হবে না। বরং সন্ত্রাস দমনে যে বরাদ্দ সরকারের রয়েছে তা মাদ্রাসা শিক্ষায় কাজে লাগানো হবে। দেশের আগামী প্রজন্মদের স্বার্থে মাদ্রাসাগুলিকে আধুনিক করা হবে।জানা যাচ্ছে, ১৯৪৭ সালে পাকিস্তানে মাদ্রাসার সংখ্যা ছিল ২৪৭টি। এখন সেই সংখ্যা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৩০,০০০।

গত মাসে পাক সরকার দেশের ১৮২টি মাদ্রাসাকে সরকারি নিয়ন্ত্রণে আনে। সেখান থেকে আটক করা হয়েছে ১০০ জনকে। আসলে ওই ৩০০০০টি মাদ্রাসার মধ্যে বেশকিছু মাদ্রাসার ওপরে আগে থেকেই নজর ছিল সরকারের।মেজর জেনারেল আসিফ গাফুর এদিন জানান, প্রাথমিকভাবে ২০০ কোটি রুপিয়া বরাদ্দ করা হয়েছে। গোটা প্রক্রিয়া সার্বিক ও সুষ্ঠভাবে চালাতে প্রতি বছর প্রয়োজন হবে ১০০ কোটি রুপিয়ার।একটা বৈপ্লবিক সিদ্ধান্ত রচিত হলো পাকিস্তানের ভবিষ্যতের জন্য|

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *