Pakistan Points No Entry To Samjhauta Express

সমঝোতার বার্তা দিয়েও সমঝোতা এক্সপ্রেস বন্ধ করলো পাকিস্তান – Pakistan Points No Entry To Samjhauta Express

আন্তর্জাতিক

পাকিস্তান থেকে ভারতে আসা রেলের সমঝোতা এক্সপ্রেস বন্ধ করে দেওয়া হল।

কি করবেন ঠিক করতেই পারছেন না| খেলার মাঠ আর জঙ্গি-নাগরিকের দেশ সামলানো এক নয়, তা বেশ বুঝতে পারছেন ইমরান খান| ঘরে-বাইরে, বন্ধু-শত্রূ সব দিক থেকেই আসছে চাপ| অপবিত্রের কাদায় ডুবে তিনি চেষ্টা করছেন পবিত্রতার বাসভূমিকে উদ্ধার করতে| জটিল পরিস্থিতি বুঝতে পেরেই ভারতের সাথে সম্প্রীতির বার্তা পাঠিয়েছিলেন| সবেমাত্র প্রস্তাব দিয়েছিলেন বিশুদ্ধ ‘সমঝোতার’। অবাক করে তারপরেই দেখা গেল খোদ পাকিস্তানই আলোচনার রাস্তায় পাঁচিল হয়ে দাঁড়িয়েছে। একেবারে বন্ধ করে দেওয়া হল পাকিস্তান-ভারতের রেল যোগাযোগের অন্যতম উপায়।

পাকিস্তান থেকে ভারতে আসা রেলের সমঝোতা এক্সপ্রেস বন্ধ করে দেওয়া হল।পাকিস্তান জানিয়ে দিয়েছে, সাম্প্রতিক পরিস্থিতিতে পাকিস্তানেক দিক থেকে আর আপাতত ভারতে ঢুকবে না সমঝোতা এক্সপ্রেস। লাহোর থেকে আজ অর্থাৎ বৃহস্পতিবারই রওনা হওয়ার কথা সমঝোতা এক্সপ্রেসের। কিন্তু পাকিস্তান জানিয়ে দিয়েছে, কোনও পাক নাগরিকই যেন এখন সমঝোতা এক্সপ্রেসে সওয়ার না হন। একদিকে পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী ভারতের কাছে শান্তির আর্জি জানাচ্ছেন , আর অন্যদিকে পাকিস্তান সমঝোতা এক্সপ্রেসের চলাচল বন্ধ করছেন। এটা কোনধরনের শিশুসুলভ কূটনীতি?

পুলওয়ামা পরবর্তী পরিস্থিতিতে দিল্লি ও ইসলামাবাদের মধ্যে চলা তীব্র উত্তেজনার পরিবেশের মধ্যে গোটা বিশ্ব তাকিয়ে আছে মৈত্রীর বন্ধনকে মজবুত করতে। বোমারু বিমানকে সামলাতে অনুরোধ করছে সব দেশের রাষ্ট্রনায়করা| আর তারমাঝেই,পাক রেলওয়ের অ্যাডিশনাল জেনারেল ম্যানেজার জানিয়েছেন, নিরাপত্তা বিষয়ক তীব্র উত্তেজনার মধ্যে যাতে কোনও নতুন করে অপ্রীতিকর ঘটনা না-ঘটে, সে জন্য ট্রেনের পরিষেবা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত তারা নিয়েছে। যদিও বুধবার ভারতের তরফে জানানো হয়েছিল, সীমান্তে উত্তেজনা থাকলেও এই ট্রেন ভারত থেকে নির্ধারিত সময়েই ছাড়বে।

নর্দার্ন রেলওয়ে জানিয়েছে, বুধবার রাত ১১.২০-তে দিল্লি থেকে আটারিগামী সমঝোতা এক্সপ্রেসে চড়ে ভারত ছেড়েছেন ২৭ জন যাত্রী। এঁদের মধ্যে তিনজন পাকিস্তানি ও ২৪ জন ভারতীয় নাগরিক। তাদের কোনো অসুবিধা হয় নি|

আসলে সিমলা চুক্তি মেনে ১৯৭৬ সালের ২২ জুলাই দু দেশের মধ্যে চালু হয়েছিল এই বন্ধুত্বের ট্রেন। সীমান্তের কাঁটাতার পেরিয়ে দুটি দেশের মানুষকে এক করার উদ্যোগ নেওয়া হয় এই ট্রেনের মাধ্যমে। অকারণে আর সেই ট্রেনকেই এবার বন্ধ করে দিল পাকিস্তান। ফলে তারা ইমরান খানের দেশ শান্তি বা সমঝোতার পক্ষে, তা ঘিরে আছে সংশয়| আশা করবো, পরিস্থিতির পরিবর্তন হবে, শুভবোধের উদয় হবে ইমরানের|

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *