Pakistan Saving Masood Azhar

পাকিস্তানই মাসুদকে নিরাপত্তা দিয়েছিল সপ্তাহ খানেক আগে – Pakistan Saving Masood Azhar

আন্তর্জাতিক

পুলওয়ামা হামালার প্রধান কারিগর জইশ-ই-মহম্মদের প্রধান মৌলানা মাসুদ আজহার এখন যে কোথায়, এই প্রশ্নটাই এখন সর্বত্র ঘুরে বেড়াচ্ছে।

বেশ কয়েকদিন পার হয়ে গেছে বর্বরোচিত পুলওয়ামা হামালা| অগণিত ভারতীয় সেনার মৃত্যুতে সারা পৃথিবী থেকে এসেছে সমবেদনার বার্তা| কিন্তু পুলওয়ামা হামালার প্রধান কারিগর জইশ-ই-মহম্মদের প্রধান মৌলানা মাসুদ আজহার এখন যে কোথায়, এই প্রশ্নটাই এখন সর্বত্র ঘুরে বেড়াচ্ছে।

গতকাল পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং পরিষ্কার করে জানিয়েছেন, পাকিস্তানের পঞ্জাব প্রদেশের বহবলপুরেই আছেন জইশ প্রধান কুখ্যাত মাসুদ আজহার। তিনি পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে জানিয়েছেন, ক্ষমতা থাকলে সেখানে গিয়ে তাকে গ্রেফতার করুক আর না পারলে ভারতকে জানাক। ইমরানের হয়ে ভারতীয় সেনারা কাজ করে আসবে। দেখা যাচ্ছে, যে ভাবেই হোক মাসুদ আজহারকে হাতে পেতে মরিয়া ভারত।

ইন্ডিয়া টুডে সূত্রে জানা যাচ্ছে, ভয়ঙ্কর পুলওয়ামা ঘটনার এক সপ্তাহ আগে পেশোয়ারে একটি জনসভায় আসে মাসুদ। শক্তিশালী জঙ্গি নিয়োগ করতে সেখানে প্রকাশ্যে ভাষণ দিতে শোনা গিয়েছে তাকে। সেখানে ওই মাসুদের জন্য পাক সরকারের তরফে চরম নিরাপত্তার ব্যবস্থাও করা হয়। ওই জনসভায় মাসুদকে বলতে শোনা গিয়েছে, আগে এই পাকিস্তানের পুলিশ ভাইয়েরা তাদের পতাকা ব্যবহারে অনুমতি দিত না কিন্তু এখন তারা জৈসির পতাকাকে নিয়ে মিছিলে হাঁটছে। অসমর্থিত সূত্রে জানা যাচ্ছে, মাসুদ এই মুহূর্তে গুরুতর অসুস্থতার কারণে রাউলপিণ্ডির এক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে।

কিছুদিন আগেই মাসুদকে বলতে শোনা যায়, গুগলে পুলওয়ামার কোনও মেয়ের নাম লিখলে জইশ-এর পতাকা ফুটে উঠবে। এমনকি ভারতের অনেক কাশ্মীরিদের বাড়িতে জইশ প্রধানের ছবিও খুঁজে পাওয়া যাবে। পুলওয়ামার ঘাতক আদিলের উদ্দেশে মাসুদ বলেছে, আদিলের এই আত্মত্যাগ তাদের পথ চলা অনেকটাই এগিয়ে দিল। তবে এখনও নাকি তাদের কাজ শেষ হয়নি। খবরের সত্যতা না জানতে পারলেও, শোনা যাচ্ছে পুলওয়ামা হামলার উদ্দেশ্যও স্পষ্ট করে মাসুদ বলেছে, সেই ২০০১ সালে ভারতের পার্লামেন্ট হামলায় সাজাপ্রাপ্ত আফজ়ল গুরু, মাসুদের দুই ভাইপো উসমান এবং তালহার মৃত্যুর বদলা নিতেই পাকিস্তান থেকে আরও জঙ্গি পাঠাচ্ছে জইশ।

গতকাল পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের মন্তব্য আসার পর ভারতের বিদেশমন্ত্রকের পাল্টা জবাবে বলা হয়েছে, মাসুদ নিয়ে ভারতের হাতে মজবুত তথ্য রয়েছে বলে দাবি বিদেশমন্ত্রকের। তবে, এই পুলওয়ামা ঘটনায় পাকিস্তানের যুক্ত থাকার সঠিক প্রমাণ মিললে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে দাবি করেন পাক প্রধানমন্ত্রী।

কিন্তু অবাক করা বিষয় এটাই যে, ২০০৮ মুম্বই হামলার মূলচক্রী হাফিজ় সইদ গত পাক নির্বাচনে পরোক্ষভাবে অংশগ্রহণ করে। take ভোটদান করতে দেখা গিয়েছে। পাকিস্তানের রাজনৈতিক মহলে অবাধে জঙ্গিদের বিচরণ করছে। কিন্তু পাঠানকোট, মুম্বই হামলা-সহ একধিক ঘটনায় হাফিজের বিরুদ্ধে ভালোভাবে প্রমাণ ভারত দিলেও তার বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ নেয়নি পাকিস্তানে। উল্টে উদাসীন থেকে,তাকে গৃহবন্দি থেকে মুক্ত করা হয়। যার কুফল ভোগ করছে আমাদের মতো এশিয়ার একাধিক দেশে|

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *